সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

বাচ্চাদের জন্য সবজি খিচুরী

বাচ্চার বয়স যখন ৫-৬ মাসে পরে তখন থেকে মায়ের বুকের দুধের পাশাপাশি অন্য খাবার খাওয়ানো দরকার। কারন তখন থেকে শুরু হয় বাচ্চাদের বড় হওয়া। সে সময় থেকে বাচ্চা তার মা-বাবা ও পরিবারের লোকজনদের অনুভব করতে শিখে। সে জন্য প্রত্যেক মায়ের উচিত বুকের দুধের পাশাপাশি তার শিশুকে অন্য কোন পুষ্টিকর খাবার খাওয়ানো। আপনি অনেক রকরমের সবজি একসাথে দিয়ে বাচ্চার জন্য সবজি খিচুরী রান্না করে দিতে পারেন। অনেক অল্প সময়ে পুষ্টিকর খাবার তৈরি করে আপনার শিশুকে খাওয়াতে পারেন। উপকরনঃ চাউল, মসুরের ডাল, পেয়াজ, রসুন, নুন, হলুদ, ১টা বা অর্ধেক কাচা মরিচ, পুই-শাক, মিষ্টি কুমড়া, আলু, কাচা পেঁপে, গাজর ও সয়াবিনের তেল সব কিছুই দেবেন পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে সবজি গুলো ভাল করে ধুয়ে টুকরা করে কেটে রাখুন। তারপর ডাল ও চাউল ভাল করে ধুয়ে টুকরা করা সবজি গুলো দিয়ে দিন। পেয়াজ, রসুন, নুন, হলুদের গুড়া, অর্ধেক কাচা-মরিচ ফালি ও সামান্যে সয়াবিন তেল চাউল ও ডাল এর মধ্যে দিয়ে ভাল করে নেড়ে পরিমান মত পানি দিয়ে চুলায় বসিয়ে দিন। ডাল, চাউল ও সবজি সিদ্ধ হয়ে গেলে চামচ দিয়ে ভাল করে পেস্ট করুন যেন বাচ্চার খেতে সুবিধা হয়। একটু নরম করে ও ঝোল রেখে চুলার আঁচ কমিয়ে চুলা থেকে নামিয়ে ফেলুন। ঠান্ডা করে আপনার বাচ্চাকে দিনে ১-২ বার ১দিন পর পর খাওয়াতে পারেন। তবে অবশ্যেই খেয়াল রাখবেন বাচ্চার যদি ঠান্ডা এলার্জি থাকে তাহলে যে সকল সবজি খেলে এলার্জি হয় সে সকল সবজি খিচুরীর মধ্যে না দেওয়াটাই ভাল হবে।
এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

খিচুরী, সবজি, বাংলা-রেসিপি, বাচ্চাদের-জন্য-সবজি-খিচুরী