সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

মান কচুর ভর্তা

মানকচুর পাতার জন্য অনেক জনপ্রিয়। বৃষ্টির দিনে ছোট বেলায় মান কচুর পাতা ও কলা পাতার ছাতা বানিয়ে মাথায় নিয়ে হাটতাম রাস্তা দিয়ে। খেলনা বাড়ি ঘরও বানাতাম মান কচুর পাতা দিয়ে। কিন্তু মান কচু খাওয়া গেলেও পাতা কখনও খাওয়া যায় না। মান কচুর ভর্তা ও তরকারি অনেক মজাদার ও লোভনীয় একটা খাবার। উপকরনঃ পরিমান মত মান কচু, পেয়াজ কুচি, লাল মরিচ, লবন ও সরিষার তেল। প্রনালীঃ মান কচু ভর্তা বা রান্না করার আগে ২-৩ দিন রোদে শুকিয়ে নিন। কারন অনেক মান কচু আছে গলা চুলকায় রোদে শুকিয়ে নিলে আর গলা চুলকায় না। মান কচুর খোসা ছাড়িয়ে ছোট ছোট টুকরা করে ধুয়ে ভাতের মধ্যে দিয়ে সিদ্ধ দিন। ভাত হয়ে গেলে মান কচু ভাতের মধ্যে থেকে বের করে অন্য পাত্রে রাখুন। এবার একটি কড়াইয়ে সামান্য তেলে পরিমান মত লাল মরিচ মচমচা করে ও পেয়াজ কুচি হালকা ভেজে নিন। তারপর মরিচ, পেয়াজ, লবন ও সরিষার তেল একসাথে চেটকিয়ে হাত দিয়ে মান কচুর ভর্তা করুন। এবার গরম গরম ভাতের সাথে যে কোন ডাল ও মজাদার মান কচুর ভর্তা পরিবেশন করুন।
এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

দেশিরান্না, রান্নাবান্না, বাংলা-রেসিপি, ভর্তা, মান-কচু