সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

স্যান্ডউইচ - খাওয়ার চেয়ে বানানো সোজা

স্যান্ডউইচ সহজতম উপায়ে বানানো পুষ্টিকর খাবারের একটি। খুব কম সময়ে খুব সাদামাটা অভিজ্ঞতায় আপনি স্যান্ডউইচ বানাতে পারেন। এটা বানানোর বিশেষ কোনো কৌশল নেই, আপনার আগ্রহই এখানে যথেষ্ট। উপকরণ: স্লাইস পাউরুটি - পরিমান নির্ভর করছে আপনার পেটের ক্ষুধা ও কতজনের জন্যে বানাচ্ছেন তার উপর, ডিম - প্রতি ২ স্লাইস পাউরুটির জন্যে একটা (কমবেশি গ্রহণযোগ্য), পেয়াজ, কাঁচা মরিচ, লবন, তেল। প্রণালী: গরম তাওয়ায় রুটি একটু গরম করে নিন - রুটির উপরের অংশ লালচে হওয়া পর্যন্ত গরম করতে পারেন, যারা টোস্টার ব্যবহার করেন তাদের জন্যে কাজটা অনেক সহজ হতে পারে। ছুরি দিয়ে চারকোনা স্লাইসের দুই বিপরীত কোনা বরাবর কাটুন, ত্রিভুজ আকৃতির দারুন এক শিল্পকর্ম আপনি পাবেন যা দেখে স্যান্ডউইচ বানানোর প্রথম ধাপের প্রথম আত্মতৃপ্তি আপনি পেতে পারেন। ডিম ওমলেট বা মামলেট যাই করেন তার প্রক্রিয়া শুরু করুন - পেয়াজ, মরিচ, লবনের পরিমান নিজের পছন্দমতো দিন। পেয়াজ, মরিচ যদি কাটার ইচ্ছা বা দক্ষতা না থাকে তাহলে শুধু লবন দিয়েও ডিম ফেটে ভাজতে পারেন। এক হাতে স্যান্ডউইচ আরেক হাতে মরিচ কামড়ে খাওয়াতেও অন্যরকম মজা আছে। ভাজা ডিম ভাগ করে নিন। চাইলে আপনি এখনি খাওয়া শুরু করে দিতে পারেন, আবার স্যান্ডউইচ-এর মতো সাজিয়েও খেতে পারেন। ভিন্নমত: এই করণ কৌশল নিতান্তই ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতায় অর্জিত। বানিজ্যিক বা আথিতীয়তায় এর প্রয়োগ বিপদজনক হতে পারে। তবে শুনতে যতটাই হাস্যকর হোক না কেন পরিস্থিতিভেদে আপনি মনে মনে হলেও আমাকে ধন্যবাদ দিতে পারেন।
এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

স্যান্ডউইচ, বাংলা-রেসিপি, নাস্তা