সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

টকভাত রান্না

গরমের দিনে গ্রামের প্রায় পরিবার পান্তা ভাত, কাচা মরিচ ও পেয়াজ দিয়ে সকালের নাস্তা করে থাকে। কিন্তু প্রতিদিন আপনারা একই রকমের আইটেমে না খেয়ে ভিন্ন ধরনের আইটেমে এই পান্তা ভাত খেতে পারেন। বিশেষ করে পাবনা জেলার কিছু কিছু অঞ্চলের মানুষ এই পান্তা ভাতকে টকভাত হিসেবে রান্না করে খায়। টক ভাত খেতে আম দিয়ে রান্না করা নরম খিচুরীর মত লাগে। আপনিও ইচ্ছা করলে ভাত নষ্ট না করে টকভাত রান্না করে পরিবারে পরিবেশন করতে পারেন। উপকরনঃ পান্তা ভাত, মসুরে ডাল, লবন, কাচা মরিচ ফালি, পেয়াজ কুচি, রসুন, জিরা ও আদা বাটা, রসুন কুচি, ধনে গুড়া, গরম মসলা, হলুদের গুড়া, আলু কুচি, ধনিয়া পাতা ও সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ প্রথমে একটি পাত্রে পান্তা ভাত নিয়ে তার মধ্যে মসুরের ডাল ও আলুকুচিসহ উপরের সব মসলার উপকরন দিয়ে ভাল করে নেড়ে পরিমান মত সয়াবিনের তেল দিয়ে কিছুক্ষন নাড়তে থাকুন। তারপর একটু বেশি করে পানি দিয়ে পাত্রের মুখে ঢাকনা দিয়ে চুলায় বসিয়ে দিন। ভাত ফুটে উঠলে পাত্রের ঢাকনা টা নামিয়ে ফেলুন। ডাল ও আলু সিদ্ধ হয়ে গেলে চামচ দিয়ে ২-৩ বার ভাল করে নেড়ে দিন। ভাতে পরিমান মত ঘন পানি রেখে ধনিয়া পাতা কুচি ছিটিয়ে দিন এবং ১ মিনিট পরে চুলা বন্ধ করে পাত্রটি নামিয়ে টকভাত পরিবেশন করুন। টকভাত খেতে একটু টক টক লাগবে কারন পান্তা ভাত বেশি গরমে টক হয়ে যায়। এই ভাত গরম গরম খেতে খুব ভাল লাগে। মজাদার ও সুস্বাদু টকভাত শসা বা টমেটোর সালাদ দিয়ে পরিবেশন করুন।
এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

টক, ভাত, পান্তা, পাবনা, ডাল, আলু, বাংলা-রেসিপি